ব্যাংক কর্মকর্তা মওদুদের ‘খুনি’ আত্মসমর্পণ

সিলেটে পরিবহন শ্রমিকদের হামলায় অগ্রণী ব্যাংক কর্মকর্তা মওদুদ আহমেদ হত্যা মামলার প্রধান আসামি সিএনজি অটোরিকশাচালক নোমান হাছনুর আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন। বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায় মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রট ১ম আদালতের বিচারক সাইফুর রহমানের আদালতে তিনি আত্মসমর্পণ করেন। হাছনুর সিলেট সদর উপজেলার জালালাবাদ ইউনিয়নের টুকেরগাঁও পশ্চিমপাড়া গ্রামের আব্দুল হান্নানের ছেলে। ওইদিন বুধবার দুপুরে একই আদালতে হাছুন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে।

জানা যায়, এরআগে গত শনিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সিলেট নগরীর কোর্ট পয়েন্ট এলাকায় ভাড়া নিয়ে বাকবিতণ্ডার জেরে হাছনুরসহ তার কয়েকজন সহযোগী ব্যাংক কর্মকর্তা মওদুদ আহমদকে মারধর করে। তাকে গুরুতর আহতবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত মওদুদ সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় অগ্রণী ব্যাংকের হরিপুর গ্যাস ফিল্ড শাখার কর্মকর্তা ছিলেন। তার বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুরের বাসিন্দা। মৃত্যুর পর হত্যাকাণ্ডকে সড়ক দুর্ঘটনা বলে প্রচার চালায় পরিবহন শ্রমিকরা। এ ঘটনায় নিহত মওদুদের বড়ভাই আব্দুল ওয়াদুদ বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় সিএনজি অটোরিকশাচালক নোমান হাছনুর নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসএম আবু ফরহাদ। তিনি জানান, মওদুদকে হত্যা করার অভিযোগে থানায় মামলা হলে পুলিশ এজহার নামীয় আসামী হাছনুরকে গ্রেফতার করার অভিযানি একাধিকবার অভিযান চালিয়েছে। কিন্তু সে পলাতক থাকায় গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে সে আদালতে আত্মসমর্পণ করেছে। বাকি আসামিদেরও চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *