দক্ষিণ সুরমায় বিএনপি’র মিছিল থেকে গ্রেফতার ৯ : পথচারিসহ আহত ৫


দক্ষিণ সুরমা প্রতিনিধি::
সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলায় বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের মিছিল পন্ড করে দিয়েছে পুলিশ। এসময় পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আর এঘটনায় পথচারিসহ ৫জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ২ জন পথচারি সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। গতকাল সোমবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে তিনটায় দক্ষিণ সুরমা কেন্দ্রিয় বাস টার্মিনাল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এসময় পুলিশের হাতে গ্রেফতারকৃতরা হলেন দক্ষিণ সুরমা উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সিলাম ঢালিপাড়া গ্রামের মৃত জমির আলীর ছেলে তাজরুল ইসলাম তাজুল, যুবদল নেতা ও মৃত রওশন আলীর ছেলে রাসেল আহমদ, কৃষকদল নেতা ও চান্দাই পশ্চিমপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মৃত দিলু মিয়ার ছেলে এম এ মান্নান, ছাত্রদল নেতা ও পুরান তেতলি বড়বাড়ির হাজি আলখাছ মিয়ার ছেলে বাবর হোসেন, দক্ষিণ সুরমা সিলাম ইউপি ৩ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ও হাজীপুর গ্রামের বশির আলীর ছেলে মো. কামরুল ইসলাম দিপু, তার ভাই ও সিলাম ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা শাওন ইসলাম অপু, সিলাম ৩ নম্বওর ওয়ার্ড ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক ও হাজীপুর গ্রামের বাসিন্দা মো. সফর আলীর ছেলে মো. লিমন আহমদ, মোগলাবাজার ইউনিয়ন যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক ও মোগলবাজারের বাসিন্দা হাজী তৈমুছ আলীর ছেলে আলী আহমদ রাজু, বরইকান্দি ৩ নম্বর সড়কের বাসিন্দা ও ছাত্রদল নেতা মকসুদ আহমদ।
আর আহতরা হলেন, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা ছাত্রদল নেতা ফাহিম আহমদ, ইমরান হোসেন নাদিম, যুবদল নেতা কোহিনুর আহমদ, পথচারি হেলাল মিয়া ও আনা। আহতদের মধ্যে দুইজন সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাদের শরীরে রাবার বুলেট ও ইট পাটকেলের একাধিক আঘাত রয়েছে।
সূত্র জানায়, বাংলাদেশ জাতীয়তাবদী দল বিএনপি’র পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল বিকেলে দক্ষিণ সুরমা উপজেলা বিএনপির উদ্যোগে এক বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করা হয়। ওই মিছিলে দক্ষিণ সুরমা উপজেলা যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবকদল, কৃষকদলসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা জড়ো হয়ে মিছিল শুরু করেন। মিছিলটি হুমায়ুন রশীদ চত্বর থেকে সিলেট কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের দিকে যাচ্ছিলো। তখন পুলিশ মিছিলে বাধা দেয়ার চেষ্টা করেন। এসময় বিএনপির মিছিল থেকে পুলিশের সাথে সংর্ঘষ বাধে। তখন পুলিশকে লক্ষ করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা হয়। এসময় বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাংচুর ও একটি গাড়ীতে অগ্নিসংযোগ করা হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাটিচার্জ, টিয়ারশেল নিক্ষেপ ও রাবার বুলেট ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। তখন পুলিশ ৯ জনকে গ্রেফতার করে। বর্তমানে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে দক্ষিণ সুরমা উপজেলা বিএনপি’র সভ্পাতি শাহবুদ্দিন আহমদ জানান, তাদের শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশ ও সরকারদলীয় ক্যাডার বাহিনী অর্তকিত হমলা চালায় এবং নেতাকর্মীদের আহত করে ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাছাড়া শ্রমিকলীগ নেতারা গাড়ী ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে বিএনপি নেতাকর্মীদের মামলায় জড়াচ্ছে। তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
দক্ষিণ সুরমা উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক হাজী রইছ আলী জানান, বিএনপি নেতাকর্মীরা পুলিশের উপর হামলা করে ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করেছে। এই ঘটনার সাথে আওয়ামী লীগ বা অসংগঠনের কেউ জড়িত নয়।
দক্ষিণ সুরমা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আখতার হোসেন জানান, বিএনপি’র মিছিল থেকে পুলিশের উপর হামলা করা হয়েছে। আর গাড়ী ভাংচুর করে গাড়ীতে অগ্নিসংযোগ করে জনমণে আতঙ্ক ও এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের ও তাদের সহযোগিদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা হচ্ছে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে।তিনি আরো জানান পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *